আইপিএলে ড্যারেন স্যামিকে কালু বলে ডাকা হতো!

নিজস্ব ডেস্ক প্রতিবেদক : যুক্তরাষ্ট্রে জর্জ ফ্লয়েড হত্যার পর বিশ্বজুড়ে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভে সরব মানুষ। ফ্লয়েড হত্যার সেই ঘটনার প্রভাব পড়েছে ক্রীড়াঙ্গনেও।

মাঠেও যে অনেকে ঘৃণ্য বর্ণবাদের শিকার হয়েছেন, সে দুঃসহ স্মৃতির কথা জানাচ্ছেন ভুক্তভোগী খেলোয়াড়রা।

এমনই বর্ণবাদের শিকার হয়েছেন বলে জানিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুবারের বিশ্ব টি-টোয়েন্টি শিরোপাজয়ী অধিনায়ক ড্যারেন স্যামি।

তিনি বলেছেন, আমি নিয়মিতই বর্ণবাদী আচরণের শিকার হয়েছি। এমনকি ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) মতো বড় টুর্নামেন্টেও নিয়মিত বর্ণবাদের শিকার হয়েছি। তবে এখন সময় এসেছে রুখে দাঁড়ানোর।

স্যামি বলেন, আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেলার সময় আমাকে ও শ্রীলংকান অলরাউন্ডার থিসারা পেরেরাকে ‘কালু’ বলে ডাকা হতো। আমাদের ডাকনামই হয়ে গিয়েছিল কালু।

শনিবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে এসব কথা জানান স্যামি।

স্যামি জানান, ‘কালু’ শব্দের অর্থ এতদিন তিনি জানতেন না।
তিনি ভেবেছিলেন, এটি দিয়ে হয়তো বলবান ঘোড়া কিংবা শক্তিশালী পুরুষ বোঝানো হয়।

তবে সম্প্রতি এই কালু শব্দের অর্থ জানার পরই কষ্ট পান এই ক্যারিবীয় তারকা।

তিনি জানান, আইপিএলের মতো মঞ্চে এমন বর্ণবাদী আচরণ মানা তার জন্য কষ্টের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সেই কষ্টের কথা জানাতে নিজের প্রোফাইলে দেয়া স্টোরিতে স্যামি লিখেছেন– ‘ওহ তার মানে কৃষ্ণাঙ্গ হওয়ায় তারা আমাকে কালু বলত! আমি এখন সত্যিই হতাশ।’

পরের স্টোরিতেই বেশ কয়েকটি রাগের ইমোজি দিয়ে স্যামি লিখেছেন, ‘আমি মাত্র জানতে পারলাম এই কালু অর্থ কী। সানরাইজার্সে তো ওরা আমাকে ও পেরেরাকে এই নামেই ডাকত। অথচ আমি জানতাম এর অর্থ শক্তিশালী ঘোড়া। আমি এখন সত্যিই অনেক রেগে আছি।’

এর আগে শুক্রবার বর্ণবাদ প্রসঙ্গে ইনস্টাগ্রামে স্যামি লিখেছেন, ‘বর্ণবাদের বিরুদ্ধে আপনার মৌনতা এখানে স্বাগত জানানো হবে না। আপনি হয় আমাদের সঙ্গে কিংবা বিরুদ্ধে। ওহ হ্যাঁ, আমি আপনার মৌনতাকে বর্ণবাদের প্রতি সমর্থন ধরে নেব।’