ঐশ্বরিয়া-অভিষেকের গোপন কথা ফাঁস!

নিজস্ব ডেস্ক : ২০০৭ সালের ২০ এপ্রিল হিন্দু রীতি অনুযায়ী অভিষেক-ঐশ্বরিয়ার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। তার ঝলমলে সেই বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল মুম্বাইয়ের জুহুতে বচ্চনদের প্রতীক্ষা বাসভবনে। ২০১১ সালের ১৬ নভেম্বর একমাত্র মেয়ে আরাধ্য বচ্চনের জন্ম দেন।

প্রায় এক যুগ পেরিয়েও যখন অভিষেকের সঙ্গে জমিয়ে সংসার করছেন ঐশ্বরিয়া, তারপরও তাদের হালহলিকত জানতে মুখিয়ে থাকে ভক্তরা।

কিন্তু কী ভাবে একে অপরের প্রেমে পড়েছিলেন এই দুই তারকা, কী ভাবেই বা অভিষেক বিয়ের প্রস্তাব দেন ঐশ্বরিয়াকে; সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সে গোপন তথ্য ফাঁস করলেন নায়িকা নিজেই।

জি-নিউজ জানায়, ২০০৭-এর জানুয়ারিতে মুক্তি পেয়েছিল এই জুটির অভিনীত ছবি ‘গুরু’। জানা গেছে, নিউ ইয়র্কের এক হোটেলের বারান্দায় নাকি ঐশ্বরিয়াকে প্রোপোজ করেছিলেন অভিষেক। একপ্রকার ফিল্মি কায়দায় ঐশ্বরিয়ার সামনে হাঁটু গেড়ে বসে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিলেন জুনিয়র বচ্চন।

এরপর ‘যোধা আকবর’-এর শুটিংয়ে ব্যস্ত সময় পার করছিলেন ঐশ্বরিয়া। সেই ছবির শুটিংয়ে যে ঐশ্বরিয়ার জীবনে কিছু একটা ঘটবে তা কল্পনাতেই আনেননি তিনি।

ঐশ্বরিয়া বলেন, অভিষেক যখন তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন, সেই সময় হৃত্বিকের সঙ্গে ‘যোধা আকবর’-এর শুটিং করছিলেন তিনি। যোধা আকবর’-এ ওই সময় তিনি বধূবেশে বসে ছিলেন। বাস্তবে নয়, ছরি দৃশ্যের জন্যেই ওই সময় তিনি নতুন বউ সেজে বসে ছিলেন।

পরিচালক যেন বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না যে, জুনিয়ার বচ্চন বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছেন ঐশ্বরিয়াকে। অন্যদিকে, হৃত্বিক রোশন লাফিয়ে ওঠেন এবং সঙ্গে সঙ্গে রাই-কে শুভেচ্ছা জানিয়ে চিৎকার করে ওঠেন বলে জানান অভিনেত্রী।

বলিউডের অন্যতম সুখী তারকা দম্পতি হিসেবে নিজেদের প্রমাণ করেছেন অভিষেক ও ঐশ্বরিয়া। বলিউডের তারকাদের মধ্যে সুখী দাম্পত্যের উদাহরণ খুব কমই আছে। পরকীয়া, মনের অমিল কিংবা আরও নানা তুচ্ছ কারণে তারকাদের বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটছে হরহামেশাই। কিন্তু এক্ষেত্রে বিরল দৃষ্টান্তই স্থাপন করেছেন অভিষেক-ঐশ্বরিয়া।