কাস্টমস বন্ড কমিশনারেট কর্মকর্তাদের ওপর হামলা,একজন গ্রেফতার ৩টি কভার্ড ভ্যান আটক

আনোয়ারা পারভীন : বন্ড সুবিধায় আমদানিকৃত পণ্য চোরাই পথে খোলাবাজারে বিক্রির সময় ঢাকার কাস্টমস বন্ড কমিশনারেট প্রায় দেড় কোটি টাকার পণ্য সহ ৩টি কাভার্ট ভ্যান আটক করেছে। আটককৃত পণ্যের বিপরীতে আদায়যোগ্য শুল্ক করাদির পরিমাণ প্রায় ৬০ লাখ টাকা।
গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপকমিশনার রেজভী আহম্মেদ এবং সহকারী কমিশনার শরীফ মোহাম্মদ ফয়সালের নেতৃত্বে ২টি প্রিভেন্টিভ দল বুধবার দিবাগত মধ্যরাতে পুরাতন ঢাকার বিভিন্ন পয়েন্টে অভিযান চালায়। অভিযানকারী দল রাত  ১ টায় ঢাকেশ্বরী মন্দির সংলগ্ন নামফলকবিহীন একটি গুদামের সন্ধান পায়। সেখানে প্রচুর পরিমাণে বন্ড সুবিধায় আমদানিকৃত পণ্য চোরাইপথে বিক্রির জন্য মজুদ পাওয়া যায়।

পরে ভোর সাড়ে৩ টায় রাজধানীর নয়াবাজার মোড় এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় নয়াবাজার মোড় থেকে ডুপ্লেক্স বোর্ড ভর্তি ৩টি কভার্ড ভ্যান আটক করা হয়। এসব পণ্য নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় অবস্থিত ‘ভি টেক প্যাকেজিং ইন্ডাস্ট্রিজ’ নামক বন্ডেড প্রতিষ্ঠান কর্তৃক চোরাইপথে খোলাবাজারে বিক্রির লক্ষ্যে পুরাতন ঢাকায় নিয়ে খালাস করা হচ্ছিল। আটক পণ্যের মূল্য প্রায় দেড় কোটি টাকা। এর বিপরীতে আদায়যোগ্য শুল্ক করাদির পরিমাণ প্রায় ৬০ লাখ টাকা।

আটক শেষে ফিরে আসার সময় অবৈধ পাচারকারী চক্রের দুষ্কৃতিকারীরা সংঘবদ্ধ হয়ে বিনা প্ররোচণায় ছিনতাইকারী বলে চিৎকার দিয়ে ইট-পাটকেল ও লাঠি-সোটা নিয়ে কাস্টমস কর্মকর্তাদের ওপর অতর্কিত আক্রমণ চালায়। এতে ৩ জন কাস্টমস কর্মকর্তা আহত হয়। এছাড়াও তারা কাস্টমসের ১টি গাড়ি ঢাকা মেট্রো-চ-১৯-৬০৬৯ ভাংচুর করে। অতিরিক্ত পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে আক্রমণে নেতৃত্ব দানকারী মাহফুজুর রহমান (৪৮) নামে একজনকে আটক করা হয়েছে।

সরকারি কাজে বাধাদান, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রাণনাশের চেষ্টা এবং সরকারি সম্পদের ক্ষতিসাধনের অভিযোগে কোতয়ালী থানায় ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্ত আসামিদের দ্রুত গ্রেফতারসহ আইনের আওতায় নিয়ে আসতে পুলিশ তৎপরতা শুরু করেছে। কমিশনার এস এম হুমায়ুন কবীর বলেছেন, সরকারি কাজে বাধাদান এবং কাস্টমস কর্মকর্তাদের ওপর আঘাতকারী প্রত্যেককে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়া রাজস্ব সংরক্ষণ এবং দেশীয় শিল্পের বিকাশে অভিযান নিয়মিত চলবে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ওয়েবসাইটের যে কোনো লেখা বা ছবি পুনঃপ্রকাশের ক্ষেত্রে ঋণ স্বীকার বাঞ্ছনীয় ।