গাড়ির চাকায় পিষ্ট মেয়ে, বাবা হাসপাতালে

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক : রাজধানীর তেজগাঁও থানার পাশের সড়কে গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় আহত বাবা সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। শুক্রবার বেলা চারটার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। শিশুটির লাশ হাসপাতালটির মর্গে রয়েছে।মারা যাওয়া ওই শিশুর নাম ফারজানা (১০)। তাঁর বাবার নাম মিজানুর রহমান। তিনি গাজীপুরে জামেয়া রহমানিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ।

পুলিশ জানায়, দেওয়ান পরিবহনের ওই বাসটি বিশ্বরোড থেকে আজিমপুরে যাওয়ার পথে এই দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনার পর গাড়িচালক বাস থামিয়ে তেজগাঁও থানায় গিয়ে হাজির হন। ওই চালকের নাম সোহেল রানা।

তেজগাঁও থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কামাল উদ্দিন বলেন, শিশুটি তাঁর বাবার সঙ্গে মোটরসাইকেলে করে যাচ্ছিল। মোটরসাইকেল ও গাড়িটি বিজয় সরণিতে ট্রাফিক সিগন্যালে দাঁড়ানো ছিল। সিগন্যাল ছাড়ার সঙ্গে সঙ্গে গাড়ি ও মোটরসাইকেল দ্রুত গতিতে ছুটে। একপর্যায়ে গাড়ির সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কা লেগে বাবা-মেয়ে মাটিতে পড়ে যান। পরে গাড়িটি শিশুর ওপর দিয়ে চলে যায়।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী একটি শো রুমের ট্রেইনি অফিসার মো. শাহীন ইয়াসির সাকিব প্রথম আলোকে বলেন, মোটরসাইকেল চালক সড়কের ডানপাশ ঘেঁষে যাচ্ছিলেন। তাঁর ঠিক পেছনেই ছিল গাড়িটি। মোটরসাইকেল চালক লেন পরিবর্তন করতে গেলে গাড়ির সঙ্গে ধাক্কা লেগে বাবা-মেয়ে পড়ে যান। পরে গাড়ির পেছনের ডান পাশের চাকা শিশুটির মাথা পিষ্ট করে চলে যায়। আহত হলেও অল্পের জন্য গাড়ির চাকার নিচে পড়া থেকে বেঁচে গেছেন শিশুটির বাবা।

 

Print Friendly, PDF & Email