ডলার-টাকার বিনিময় হার বাড়ানোর বিষয়টি পর্যালোচনা করা হচ্ছে : বাংলাদেশ ব্যাংক

নিজস্ব প্রতিবেদক : বছরের শুরুতে ডলারের দাম ৮৫ টাকা করার সম্ভাবনা রয়েছে। বর্তমান বিশ্ববাণিজ্যে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে ডলার-টাকার বিনিময় হার বাড়ানোর বিষয়টি পর্যালোচনা করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।
বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম বলেন, বর্তমানে বাজারে ডলার নিয়ে কিছুটা অস্থিরতা রয়েছে। এই অস্থিরতা দূর করতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক চলতি অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে ১১৩ কোটি ৪০ লাখ ডলার বাজারে ছেড়েছে। বছরের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবারেও ২ কোটি ৮০ লাখ ডলার ব্যাংকগুলোর কাছে বিক্রি করা হয়েছে। তিনি জানান, বর্তমানে ডলারের মূল্য ৮৩ টাকা ৯০ পয়সা। আন্ত:ব্যাংক মুদ্রাবাজারে ডলার ৯৩ টাকা ৯০ পয়সা দরেও বিক্রি হচ্ছে। দুই মাস ধরে এই অবস্থা বিরাজ করছে। এ কারণে বছরের শেষ কর্মদিবসে বাজার চাহিদা পুরনে কিছু ডলার ছাড়া হয়েছে। পাশাপাশি নতুন বছরে ডলার-টাকার বিনিময় হার বাড়ানোর বিষটি বিবেচনা করা হচ্ছে।
প্রসঙ্গক্রমে উল্লেখ্য, আমদানি বাড়ায় বেশ কিছুদিন ধরে বাজারে ডলারের চাহিদা বেড়ে গেছে। সেই চাহিদার সুযোগ নিয়ে ব্যাংকগুলো আন্ত:ব্যাংক মুদ্রাবাজারে বাংলাদেশ ব্যাংকের বেঁধে দেওয়া দামের চেয়েও বেশি দামে ডলার বিক্রি করেছে। সে কারণেই বাজারে অস্থিরতা চলছে বলে মনে করে বাংলাদেশ ব্যাংক। অথচ ছয় মাস আগেও ২৮ জুন ডলার-টাকার বিনিময় হার ছিল ৮৩ টাকা ৭২ পয়সা। এক বছর আগে ছিল ৮২ টাকা ৭০ পয়সা।
আমদানি পর্যায়ে ‘নির্ধারিত’ এই দরের চেয়ে বেশি দামে ডলার বিক্রি করায় বাংলাদেশ ব্যাংক অক্টোবরে নয়টি ব্যাংককে শোকজ করে। গত বছরের নভেম্বরে একই অভিযোগে ২০টি ব্যাংককে কারণ দর্শানোর নোটিস দিয়েছিল। সুষ্পষ্ট জবাব না দেওয়ায় কয়েকটি ব্যাংককে বাংলাদেশ ব্যাংক জরিমানাও করেছে।

Print Friendly, PDF & Email