বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, কর্মচারী বরখাস্ত

নিজস্ব জেলা প্রতিবেদক : যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত ও যৌন হয়রানি করার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের কর্মচারী রাকিব রহমানকে চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. আহসান হাবীবের স্বাক্ষর করা এক আদেশে এ তথ্য জানানো হয়েছে। ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে চার সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এই কমিটির আহ্বায়ক বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ হাসিনা ছাত্রী হলের প্রভোস্ট সেলিনা আক্তার। এই কমিটিকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রাকিব রহমান ফেসবুকে অন্য নামে আইডি খুলে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানিমূলক বার্তা পাঠাতেন। মুঠোফোনেও বিরক্ত করতেন। একপর্যায়ে রাকিব স্বীকার করেন যে তিনি যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি করেন। পরে ওই ছাত্রী তথ্য-প্রমাণসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেন। ওই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রাকিবকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। একই সঙ্গে তাঁকে কেন স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করা হবে না—এই মর্মে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

ওই অফিস আদেশে বলা হয়েছে, সাময়িকভাবে বরখাস্ত থাকার সময় ওই কর্মচারী অভিযোগকারী ছাত্রীকে কোনোভাবে হয়রানি বা উত্ত্যক্ত করলে তাৎক্ষণিকভাবে চাকরি থেকে স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email