মুতাজ আইএসের হয়ে যুদ্ধ করেছিলেন

নিজস্ব বার্তা প্রতিবেদক : ঢাকায় গ্রেপ্তার সিরিয়া ফেরত বাংলাদেশি মুতাজ আবদুল মজিদ তুরস্ক যান ২০১৬ সালে । সেখানেই তার সঙ্গে আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) যোগাযোগ হয়। এর প্রায় দুই বছর পর তিনি সিরিয়ায় গিয়ে আইএসের পক্ষে যুদ্ধ করেছিলেন।

মুতাজ বাংলাদেশে ঢোকেন চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে। আগেই পুলিশের কাছে তার সম্পর্কে খবর ছিল। পুলিশের একটি সূত্র জানায় তিনি উবারের ভাড়া গাড়িতে করে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়েন। পরে সেই সূত্র ধরে মুতাজের অবস্থান শনাক্ত করা হয়।

রোববার উত্তরা পশ্চিম থানায় মুতাজ আবদুল মজিদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে মামলা হয়েছে। মামলার এজাহারে মুতাজের আইএস সম্পৃক্ততার উল্লেখ আছে। তিনি এখন চার দিনের রিমান্ডে পুলিশি হেফাজতে আছেন। মুতাজের আইএস সম্পৃক্ততার কথা আনুষ্ঠানিকভাবে পুলিশ স্বীকার করছে না।

সোমবার কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইমের উপকমিশনার মহিবুল ইসলাম খান বলেন, মুতাজ নব্য জেএমবির সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছিলেন।

মামলার এজাহারে পুলিশ বলছে, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মুতাজ জানিয়েছেন তার বাবা বাংলাদেশি ও মা পাকিস্তানি। তার জন্ম ও বেড়ে ওঠা সৌদি আরবে। বাবা আবদুল মজিদ ব্যাপারী মারা গেছেন। সৌদি আরবে তার ভাই-বোনেরা আছেন। মুতাজ ২০১৪ সালে সৌদি দূতাবাসের মাধ্যমে বাংলাদেশি পাসপোর্ট করেন। ওই পাসপোর্ট ব্যবহার করে তিনি ২০১৬ সালে সৌদি আরব থেকে তুরস্কে যান। সে সময়ই তিনি সন্ত্রাসী সংগঠন আইএস এর ভাবাদর্শে উদ্বুদ্ধ হন। সংগঠনের সঙ্গে জড়িত বিভিন্ন ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ করেন এবং সিরিয়া যাওয়ার সুযোগ খুঁজতে থাকেন। সিরিয়ায় ঢুকতে না পেরে মুতাজ সৌদি আরবে ফিরে আসেন। আবারও ২০১৭ সালে মিশর ও তুরস্ক হয়ে সিরিয়ায় ঢোকার চেষ্টা করেন। বেশ কয়েকবার সৌদি আরব থেকে তুরস্কে যাওয়ার কথা তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে ২০১৮ সালের মে মাসে মুতাজ সিরিয়ায় যান এবং আইএস এর সদস্য হিসেবে যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। সিরিয়ায় আইএস এর পতন হলে মুতাজ সেখান থেকে পালিয়ে তুরস্কে চলে যান। লুকিয়েছিলেন সেখানে। মুতাজ চাইছিলেন তুরস্ক থেকে গ্রিস হয়ে ইউরোপীয় কোনো দেশে পালিয়ে যেতে। এরই মধ্যে ২০১৮ সালের শেষ দিকে তুরস্কের পুলিশ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করলে মুতাজ গোপনে তুরস্ক থেকে গত ১ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশে আসেন।

পুলিশ বলছে, তাঁরা আগেই জানতেন ফেব্রুয়ারিতে মুতাজ আবদুল মজিদ নামে এক সিরিয়া ফেরত ব্যক্তি বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে। তার উদ্দশ্য খিলাফত প্রতিষ্ঠা করা ও বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা। পুলিশ এরপর থেকেই তাঁকে খুঁজছিল। পরে গত গত ৫ মে পুলিশ তাকে উত্তরা ১১ নম্বর সেক্টর ১০ নম্বর সড়কের বায়তুন নূর জামে মসজিদের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করে।

মুতাজ বাংলাদেশে নব্য জেএমবির সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছিল বলে জানাচ্ছে পুলিশ। বাংলাদেশে মুতাজ আবদুল মজিদের বাড়ি শরীয়তপুরের সখিপুর।

নব্য জেএমবি এ দেশে আইএসের মতাদর্শ অনুসরণ করে থাকে বলে বিভিন্ন সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। এ দেশ থেকে চল্লিশ জনের মতো সিরিয়ায় আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসের হয়ে যুদ্ধ করতে গেছে বলে জানা যায়। তাঁদের প্রত্যেকের সম্পর্কে বিমানবন্দরগুলোকে সতর্ক করা হয়েছে। মুতাজ ছাড়া এখন পর্যন্ত সিরিয়া ফেরত কারও দেশে ফেরার কোনো খবর আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে নেই।

Print Friendly, PDF & Email