সরকারি কেনাকাটা উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে চেষ্টা করা হবে : অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : সরকারি কেনাকাটা সরাসরি ক্রয় পদ্ধতির পরিবর্তে উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে করার চেষ্টা করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বুধবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে অর্থনীতি বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি এবং সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন অর্থমন্ত্রী।

তিনি বলেন, কমিটিতে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের নীতিগত অনুমোদনের জন্য একটি প্রস্তাব এসেছিল। কিন্তু প্রস্তাবটির অনুমোদন দেওয়া হয়নি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কমিটমেন্ট, তিনি আর কোথাও অনিয়ম, ব্যত্যয়, ত্রুটি কোনো কাজেই দেখতে চাচ্ছেন না। সরকারি কেনাকাটার বিষয়টি একটি বড় বিষয়। আমরা যদি এ ক্ষেত্রে সঠিক দাম নির্ধারণ করতে না পারি, তাহলে আমাদের অপচয় বাড়বে। সরকারি কেনাকাটায় অনিয়ম, ত্রুটি ও বিচ্যুতি মেনে নেওয়া হবে না।

ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে দোহাজারী থেকে রামু হয়ে কবাজার এবং রামু থেকে ঘুমধুম পর্যন্ত সিঙ্গেল রেললাইন ডুয়েল গেজ ট্র্যাক নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নে পরামর্শক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

ডেভেলপমেন্ট ডিজাইন কনসালটেন্টকে ৩৮ কোটি ৫১ লাখ টাকা ব্যয়ে পরামর্শক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ দশ প্রকল্পের এটি অন্যতম। এতদিন জমি অধিগ্রহণ নিয়ে জটিলতা থাকলেও সেটি নিরসন হয়েছে। এখন কাজ নির্দিষ্ট সময়ের আগেই সম্পন্ন করা সম্ভব হবে। জিওবি ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) অর্থায়নে এ প্রকল্প ২০২২ সালের মধ্যে শেষ করার লক্ষ্য রয়েছে। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোসাম্মৎ নাসিমা বেগম সাংবাদিকদের জানান, চলতি অর্থবছরে ১৪ লাখ ২০ হাজার টন জ্বালানি তেল আমদানি করার প্রস্তাবসহ মোট ৬ প্রস্তাব সভায় অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।