করোনার মুখে খাওয়ার ওষুধ দেশের বাজারে

নয়াবার্তা প্রতিবেদক : যুক্তরাজ্যে সদ্য অনুমোদন পাওয়া করোনাভাইরাসের মুখে খাওয়ার ওষুধ ‘মলনুপিরাভির’ বাংলাদেশের বাজারে অনুমোদন পেয়েছে। অনুমোদিত ১০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস এরইমধ্যে ওষুধটি বাজারজাতকরণ শুরু করে দিয়েছে।

ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন। মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, এসকেএফ ও স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালসও ওষুধটি তৈরি ও বাজারজাতের অনুমোদন পেয়েছে। এতে করে দেশের বাজারে এ ওষুধ এক সপ্তাহের মধ্যেই পাওয়া যাবে।

তিনি বলেন, প্রথমবারের মতো মুখে খাওয়ার কোনো অ্যান্টিভাইরাল আমাদের দেশে এল। মলনুপিরাভির এরইমধ্যে যুক্তরাজ্যে অনুমোদন পেয়েছে। গতকাল (সোমবার) আমরা বেক্সিমকোকে এবং আজকে (মঙ্গলবার) এসকেএফকে ইমার্জেন্সি ইউজ এবং মার্কেটিং অথরাইজেশন দিয়েছি। আমরা মনে করি, এ ওষুধ করোনাভাইরাস মহামারি দূর করতে ভূমিকা পালন করবে।

উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে কিছু ওষুধের ক্ষেত্রে ‘মেধাস্বত্ত্ব ছাড়ের’ সুযোগ থাকায় বাংলাদেশের ওষুধ কোম্পানিগুলো দ্রুত এ ওষুধ আনতে পারছে বলেও তিনি জানান।

প্রতিদিন দুই বেলা চারটি করে আটটি ক্যাপসুল খেতে হবে। এ ওষুধের কোর্স চলবে পাঁচদিন। ২০০ মিলিগ্রামের প্রতিটি ক্যাপসুলের দাম পড়বে ৫০ টাকা। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী এ ওষুধ খেতে হবে বলেও জানিয়েছেন ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক।

যুক্তরাষ্ট্রের দুই কোম্পানি মার্ক শার্প অ্যান্ড ডোম (এমএসডি) ও রিজেবাক বায়োথেরাপিউটিক যৌথভাবে তৈরি করেছে লাগেভ্রিও (মলনুপিরাভির) নামে মুখে খাওয়ার এ ওষুধ।

পরীক্ষামূলক প্রয়োগে তাদের তৈরি ওষুধ মলনুপিরাভির মারাত্মক ঝুঁকিতে থাকা কভিড রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার বা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ার হার ৫০ শতাংশ কমিয়ে আনতে পারছে বলে প্রমাণ মিলেছে।

এরপর গত বৃহস্পতিবার করোনার উপসর্গের চিকিৎসায় মুখে খাওয়ার প্রথম ওষুধটির অনুমোদন দেয় যুক্তরাজ্যের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা মেডিসিনস অ্যান্ড হেলথকেয়ার রেগুলেটরি এজেন্সি (এমএইচআরএ)।