দিনে তিন কাপ কফি হার্ট এটাক কমিয়ে দেয়

নিজস্ব ডেস্ক প্রতিবেদক : নতুন এক গবেষণায় বলা হয়েছে, দিনে যদি তিন কাপ কফি পান করেন, তাহলে আপনার হার্ট বা হৃদযন্ত্রকে সুরক্ষিত রাখতে পারবেন। ইউকে বায়োব্যাংক স্টাডির গবেষণাটি শুক্রবার উপস্থাপন করা হয়েছে ইউরোপিয়ান সোসাইটি অব কার্ডিওলোজিতে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন সিএনএন। এতে বলা হয়েছে, যেসব মানুষ দিনে আধা কাপ থেকে ৩ কাপ কফি পান করেন, তাদের হার্টের অসুস্থতা, স্ট্রোক বা সংশ্লিষ্ট অন্য রোগে মৃত্যুর ঝুঁকি, কফি পান করেন না এমন ব্যক্তিদের তুলনায় অনেক কমে যায়। এই গবেষণায় অংশ নিয়েছেন কমপক্ষে ৪ লাখ ৬৮ হাজার মানুষ। তারা কফি পান করেন। এতে আরো দেখা গেছে, মধ্যম মাত্রায় যেসব মানুষ কফি পান করেন তাদের মধ্যে প্রাপ্ত বয়স্কদেরকে টাইপ-২ ডায়াবেটিসে, পার্কিনসন রোগ, লিভারের রোগ, মূত্রথলির ক্যান্সার, আলজিমার্স, পশ্চাৎদেশে ব্যথাসহ নানা রকম সমস্যা থেকে রক্ষা করে। তবে হার্টের ক্ষেত্রে এপ্রিলে তিনটি বড় ধরনের গবেষণা বিষয়ক বিপুল ডাটা প্রকাশ হয়েছে।

তাতে দেখা গেছে, দিনে এক বা তারও বেশি সাধারণ, কফিনেটেড কফি পান করলে দীর্ঘ সময় হার্ট ফেলের ঝুঁকি কমিয়ে দেয়। যারা কফি পান করেন না, তাদের সঙ্গে তুলনা করে এপ্রিলের বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, প্রতি এক কাপ কফি হার্ট ফেলের ঝুঁকি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে শতকরা ৫ ভাগ থেকে ১২ ভাগ পর্যন্ত কমিয়ে দেয়। তিনটি গবেষণার মধ্যে দুটি গবেষণায় এ কথা বলা হয়েছে।

অন্যদিকে তৃতীয় গবেষণায় বলা হয়, মোটেও কফি পান না করা অথবা দিনে এক কাপ কফি পান করলে হার্ট ফেলের ঝুঁকি একই রকম। কিন্তু যখন দিনে দুই বা তারও অধিক ব্লাক কফি কেউ পান করেন তাহলে তার এসব ঝুঁকি কমে যায় শতকরা প্রায় ৩০ ভাগ। এপ্রিলে ইউনিভার্সিটি অব কলোরাডো স্কুল অব মেডিসিনের কলোরাডো সেন্টার ফর পার্সোনালাইজড মেডিসিনের মেডিকেল ডিরেক্টর ও সিনিয়র লেখক ড. ডেভিড কাও বলেছেন, ক্যাফেইন এবং হার্ট ফেলের ঝুঁকি কমে আসার মধ্যে সম্পর্কটা বিস্ময়কর। সাধারণ মানুষ কফি এবং ক্যাফেইন বিষয়টিকে হার্টের জন্য খারাপ হিসেবে বিবেচনা করেন। কারণ, এর সঙ্গে বুক ধড়ফড়ানি, উচ্চ রক্তচাপসহ আরো কিছু বিষয়ের সম্পর্ক আছে।

এপ্রিলে যে গবেষণা হয়েছে, তাতে ওই কফির কথা বলা হয়নি, যে কফি থেকে ক্যাফেইন সরিয়ে নেয়া হয়েছে। বরং বিশ্লেষণে দেখা গেছে, কফি এবং হার্ট ফেল কমে আসার মধ্যে একটি সম্পর্ক আছে। যখন একটি হার্ট এতটাই দুর্বল হয়ে পড়ে যে, সে আর দেহকে অক্সিজেনযুক্ত রক্ত সরবরাহ দিতে পারছে না, তখনই হার্টফেল হয়। দেহকোষকে সক্রিয় রাখতে বা কার্যকর রাখতে অক্সিজেনযুক্ত রক্ত অত্যাবশ্যক। অবসন্নতা থেকে, শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা এবং সে অবস্থায় হাঁটার সমস্যা থেকে, সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠার সময় অথবা নিত্যদিনের বিভিন্ন কাজ করতে গিয়ে মানুষ হার্টফেল করতে পারে।

শুধু ব্লাক কফি পান করলে কি হয় এমনটা নিয়ে অনেকে গবেষণা করেছেন। তবে কফি পানের সময় বেশির ভাগ মানুষ তাতে দুধ, চিনি, ঘ্রাণ বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন রকম ক্রিম ব্যবহার করেন। এসব জিনিস থেকে প্রচুর পরিমাণ ক্যালরি, চিনি এবং চর্বি যুক্ত হয়। এসব মিলে হার্টের স্বাস্থ্যের জন্য সুবিধার চেয়ে নেতিবাচক ফল বয়ে আনতে পারে বলে বিজ্ঞানীরা বলছেন। উপরন্তু গবেষণায় এক কাপ কফি হিসেবে ৮ আউন্স পরিমাণকে বোঝানো হয়েছে। কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই কফির দোকানে এক কাপে বিক্রি হয় ১৬ আউন্স হিসেবে।